কেরানীগঞ্জের অগ্নিকাণ্ডে কারখানা সিলগালা, হত্যা মামলা

পিবিএ,ঢাকা: কেরানীগঞ্জের চুনকুটিয়া এলাকায় প্রাইম পেট এন্ড প্লাস্টিক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় নিহতের সংখ্যা দাড়িয়েছে ১৩। যাদের মধ্যে একজনকে ঘটনাস্থলেই মৃত অবস্থায় পাওয়া যায়। বাকিরা ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

এ ঘটনায় অগ্নিদগ্ধ হয়ে মৃত আলমের ভাই মোঃ জাহাঙ্গীর ঘটনাটিকে পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড দাবি করে কারখানা মালিক মোঃ নজরুল ইসলামের বিরুদ্ধে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। পরে থানা পুলিশ অভিযোগটি তদন্ত শেষে হত্যা মামলা নিয়ে পুনরায় তদন্ত শুরু করে।

এদিকে শুক্রবার সকাল ১১টার দিকে প্লাাস্টিক কারখানাটি সিলগালা করে দিয়েছে কেরানীগঞ্জ উপজেলা প্রশাসন। এর আগে উপজেলার শুভাঢ্যা এলাকায় একই মালিকের আরেকটি কারখানা সিলগালা করে দেওয়া হয়।

মামলার বাদী মোঃ জাহাঙ্গীরের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, এই কারখানাটিতে গত ২ বছরে ৩ বার আগুন লেগেছে। যার মধ্যে দুটি আগুনের ঘটনাই ঘটেছে এবছর। অথচ কারখানা মালিক কোনো ব্যবস্থাই নেয় নাই। এখন শুনছি এ কারখানার কোনো অনুমোদনও ছিলো না। কারখানার মালিক নজরুল ইসলাম পরিকল্পিতভাবে হত্যার উদ্দেশে এ ঘটনা ঘটিয়েছে। তার কারণেই আমার ভাইসহ কারখানার ১৩ শ্রমিক মারা গেছেন। আরো ২০/২১ জন রয়েছে মৃত্যু শয্যায়। আমি এ হত্যাকাণ্ডের বিচার চাই।

দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আশিকুজ্জামান বলেন, মামলাটি আমরা গুরুত্বের সাথে তদন্ত করছি। আসামী পলাতক রয়েছে। ইতোমধ্যে আসামির গ্রামের বাড়ি অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে। আশা করছি শিগগিরই আসামিকে গ্রেপ্তার করা সম্ভব হবে।

কেরানীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) অমিত দেবনাথ ঘটনাস্থলে উপস্থিত থেকে কারাখানা দুটি সিলগালা করেন। তিনি বলেন, জেল প্রশাসক মহোদয় কারখানা দুটি পরিদর্শন করেছেন। তার নির্দেশেই কারখানা দুটি সিলগালা করে দেওয়া হয়েছে। এই মালিকের দ্বিতীয় যে কারখানা রয়েছে সেটিও আবাসিক এলাকার মধ্যে। তাছাড়া কারখানাটিতে অগ্নিনির্বাপণ ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। এমনকি অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটলে সেখানে ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি পৌঁছানো মুশকিল।

পিবিএ/এমএসএম