নোয়াখালীতে বিএনপি নেতাকে গলা কেটে হত্যা

hotta-killনিউজ ডেস্ক: নোয়াখালীর চাটখিল উপজেলা বিএনপির নেতা আলমগীর হোসেনকে (৪০) জবাই করে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

রবিবার সকালে পুলিশ তার লাশ ময়নাতদন্তের জন্য নোয়াখালী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করেছে।

চাটখিল উপজেলা বিএনপির সভাপতি আনোয়ার হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক পেয়ার আহম্মদ জানান, উপজেলা বিএনপির সদস্য আলমগীর হোসেনকে পূর্ব পরিকল্পিতিভাবে হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনায় তাৎক্ষণিকভাবে বিএনপির নেতাকর্মীরা রাত সাড়ে ১২টার দিকে পৌর শহরে বিক্ষোভ মিছিল বের করেছে। মিছিল শেষে সরকারি হাসপাতাল প্রাঙ্গনে দেয়ান শামছুল আরেফিন শামীম, আহসানুল হক মাসুদ ও এডভোকেট আবু হানিফ বক্তব্য রাখেন।

এ ব্যাপারে আলমগীর হোসেনের ছোট ভাই গোলাম মাওলা মিন্টু সাংবাদিকদেরকে জানান, তার ভাই এর কোনো শত্রু ছিল না। ময়নাতদন্তের রিপোর্টের জন্য তারা অপেক্ষা করবেন।

চাটখিল থানার ওসি (তদন্ত) আবুল খায়ের জানান, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে আলমগীর হোসেন মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় মারা গেছে। তবে ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পেলে তা পরিষ্কার হয়ে যাবে।

বিএনপি’র যুগ্ম মহাসচিব ও সাবেক সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন দাবি করেন, রাজনৈতিক প্রতিহিংসার জেরে আলমগীরকে হত্যা করা হয়েছে। তিনি এ হত্যাকাণ্ডের তীব্র নিন্দা জানান এবং অবিলম্বে দোষীদের গ্রেফতারের দাবি জানান। নিহত আলমগীর হোসেনের বাড়ি উপজেলার পরকোট গ্রামের আগুনি বাড়ির বলে জানা গেছে।