বাঁশখালীর সব ইউপির নির্বাচন স্থগিত

electionনিউজ ডেস্ক: চট্টগ্রামের বাঁশখালীতে এক নির্বাচন কর্মকর্তাকে মারধরের ঘটনায় অবশেষে ফেঁসেই যাচ্ছেন স্থানীয় এমপি মোস্তাফিজুর রহমান। তার বিরুদ্ধে প্রচলিত আইনে মামলা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

জেলা নির্বাচন কর্মকর্তাকে বাদী হয়ে এই মামলা করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। সেইসঙ্গে উপজেলার সব ইউনিয়ন পরিষদের ভোট গ্রহণও স্থগিত করেছে ইসি।
ষষ্ঠ ও শেষ ধাপে আগামী ৪ জুন সারা দেশে ৭ শতাধিক ইউপির মধ্যে বাঁশখালী উপজেলায় ১৪টি ইউপিতে ভোট হওয়ার কথা ছিল। এর মধ্যে ৩টি ইউপির ভোট ঘূর্ণিঝড় রোয়ানুর কারণে আগেই স্থগিত করেছিল ইসি। এবার বাকি ১১ ইউপির ভোটও স্থগিত হয়ে গেল।

ইসি সচিব মো. সিরাজুল ইসলাম বুধবার জানিয়েছেন, উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা জাহিদ হোসেনকে মারধরের অভিযোগে বাঁশখালীর এমপি মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরীর বিরুদ্ধে মামলা করার সিদ্ধান্ত হয়েছে। তার বিরুদ্ধে প্রচলিত আইনেই মামলা হবে। মারধরের কারণে বাঁশখালী উপজেলার সব নির্বাচন বন্ধ করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা জাহিদের অভিযোগ, আগামী ৪ জুন অনুষ্ঠেয় ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের জন্য ‘ফর্দ অনুযায়ী’ ভোটগ্রহণ কর্মকর্তা ‘নিয়োগ না দেয়ায়’এমপি মোস্তফিজুর রহমান ও আওয়ামী লীগের কয়েকজন নেতা তাকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে ডেকে নিয়ে মারধর করেন। অবশ্য অভিযোগ অস্বীকার করে এমপি মোস্তাফিজ বলেছেন সেখানে মারধরের কোনো ঘটনা ঘটেনি।