এমপি লিটনের জামিন নামঞ্জুর

karagarনিউজ ডেস্ক: শিশু সৌরভকে গুলি করে হত্যা চেষ্টার মামলায় ঢাকায় গ্রেফতারকৃত গাইবান্ধা-১ আসনের সরকারদলীয় সংসদ সদস্য মঞ্জুরুল ইসলাম লিটনের জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার দুপুরে গাইবান্ধা জেলা অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট (সুন্দরগঞ্জ) আদালতের বিচারক মোঃ ময়নুল হাসান ইউছুফ শুনানি শেষে এই আদেশ দেন।

এর আগে দুপুর পৌনে ১২টার দিকে এমপি লিটনকে গাইবান্ধা ডিবি কার্যালয় থেকে কোর্ট হাজতে আনা হয়। পরে দুপুর ১২টা ৫ মিনিটে তাকে অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট (সুন্দরগঞ্জ) আদালতে হাজির করে জামিন আবেদন জানান লিটনের পক্ষের আইনজীবী মোঃ সিরাজুল ইসলাম বাবু।

আদালতে হাজির করার পর এমপি লিটন এজলাসে প্রায় ২৫ মিনিট দাঁড়িয়ে ছিলেন। এ সময় উভয়পক্ষের আইনজীবী শুনানিতে অংশ নেন।

শিশু সৌরভকে হত্যা চেষ্টার অভিযোগে এমপি লিটনের বিরুদ্ধে ৩০৭ ও ৩২৬ ধারায় মামলা হয়েছে। যা জামিন অযোগ্য ধারা। এ ছাড়া তার বিরুদ্ধে বাড়ি ভাংচুর ও লুটপাটের অভিযোগেও মামলা রয়েছে। তাই আদালতে হাজির করার পর তার জামিন নামঞ্জুর করার জন্য বিরোধিতা করা হয়।

এর আগে সকাল সাড়ে ৬টার দিকে তাকে নিয়ে ঢাকা থেকে বিশেষ নিরাপত্তায় গাইবান্ধায় নিয়ে আসে পুলিশের একটি দল। তাকে প্রথমে জেলা পুলিশ সুপারের (এসপি) কার্যালয়ে নেয়া হয়।

তার আগে বুধবার রাত ১০টার দিকে রাজধানীর উত্তরা থেকে এমপি লিটনকে গ্রেফতার করে গোয়েন্দা পুলিশ।

এদিকে দুপুরে এমপি লিটনকে গাইবান্ধা বিচারিক হাকিমের আদালতে নিয়ে যাওয়ার সময় আদালতের পাশে তার সমর্থকরা মিছিল করতে থাকে। একপর্যায়ে পুলিশ তাদের সরিয়ে দিতে চাইলে আদালতের পাশেই পলাশবাড়ী সড়কে পুলিশের সঙ্গে সমর্থকদের সংঘর্ষ হয়। এ সময় পুলিশ লাঠিচার্জ এবং টিয়ার শেল নিক্ষেপ করে। এতে ২ জন আহত হন।

প্রসঙ্গত, গত ২ অক্টোবর ভোরে মঞ্জুরুল ইসলাম লিটন ল্যান্ডক্রুজার গাড়ি নিয়ে নিজ বাড়ি বামনডাঙ্গা থেকে সুন্দরগঞ্জ আসেন। সারারাত সুন্দরগঞ্জে কাটিয়ে বামনডাঙ্গা যাওয়ার সময় ব্র্যাক মোড়ের পশ্চিম পাশের গোপালচরণ কালাইয়ের ব্রিজ সংলগ্ন রাস্তার পাশে হাঁড়িপাতিল ব্যবসায়ী সাজু মিয়ার ছেলে গোপালচরণ প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্র শাহাদত হোসেন সৌরভ ও তাজুল ইসলামকে দেখতে পেয়ে গাড়িতে উঠতে বলেন।

কিন্তু তারা ভয়ে গাড়িতে না উঠে দৌড়ে পালাবার চেষ্টা করলে এমপি লিটন তাদের লক্ষ্য করে পরপর কয়েক রাউন্ড গুলি ছোড়েন। এতে সৌরভের দুই পায়ে গুলিবিদ্ধ হলে সে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে।

সৌরভ বর্তমানে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ৫নং ওয়ার্ডের ২৮ নম্বর বেডে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

ঘটনার পরদিন সৌরভের বাবা বাদী হয়ে সংসদ সদস্য মোঃ মঞ্জুরুল ইসলাম লিটনকে আসামি করে সুন্দরগঞ্জ থানায় মামলা করেন।

Share This: