রবিবার থেকে জবিতে অনির্দিষ্টকালের ছাত্র ধর্মঘট

ju_gate_333869নিউজ ডেস্ক: জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) ছাত্র নাজিমুদ্দিন সামাদের হত্যাকারীদের গ্রেপ্তারে আল্টিমেটাম দিয়েছে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় সাধারণ শিক্ষার্থীরা। শনিবার রাত ১২টার মধ্যে হত্যাকারীদের গ্রেপ্তার না করলে রবিবার থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ে অনির্দিষ্টকালের ছাত্র ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা।

বৃহস্পতিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে গুলিস্থান থেকে সদরঘাটমুখী রাস্তা অবরোধ করে চার ঘণ্টা বিক্ষোভ দেখানোর পর এই কর্মূসচি ঘোষণা করেন তারা।

সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্টের জবি শাখার সভাপতি এনএম মুজাহিদ অনিক জানান, নাজিম হত্যাকারীদের শনিবার রাত ১২টার মধ্যে গ্রেফতার করা না হলে সর্বাত্মক ছাত্র ধর্মঘটের ডাক দেওয়া হবে।

বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্র ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক এস কে শুভ বলেন, “আগামীকাল শুক্রবার বিকাল ৩টায় শাহবাগে সাধারণ শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ সমাবেশ করবে।”

শনিবারের মধ্যে খুনীরা গ্রেপ্তার না হলে রোববার ‘সর্বাত্মক ছাত্র ধর্মঘট’ পালন করা হবে বলে জানান এ আন্দোলনের অন্যতম সংগঠক বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগ নেতা সুজন দাস অর্ক।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, নাজিম হত্যার প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের প্রায় পাঁচ শতাধিক বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থী শহীদ মিনারের সামনে থেকে বিক্ষোভ মিছিল শুরু করে পুরো ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ করে।

পরে শাখারী বাজার মোড়, লক্ষ্মীবাজার, বাহাদুর শাহ পার্ক হয়ে ক্যাম্পাসের মূল ফটেকের সামনে অবস্থান করে সড়ক অবরোধ করে। এসময় শিক্ষার্থীরা টায়ার পুড়িয়ে বিক্ষোভ করে। এতে সদরঘাট-গুলিস্থান সড়কে যানচলাচল বন্ধ হয়ে যায়। প্রায় চার ঘণ্টা ওই সড়কে যান চলাচল বন্ধ থাকায় পুরান ঢাকার বিভিন্ন সড়কে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়। এতে ওই এলাকায় এইচএসসি পরীক্ষার কেন্দ্রের পরীক্ষার্থীরা বিপাকে পড়ে।

সূত্রাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তপন চন্দ্র সাহা জানান, নাজিমউদ্দিনের গ্রামের বাড়ি সিলেটের বিয়ানীবাজারে। ব্যক্তিগত দ্বন্দ্ব এবং নাজিমের লেখালেখি এ দুটি বিষয়কে গুরুত্ব দিয়ে হত্যাকাণ্ডের তদন্ত শুরু হয়েছে। পুলিশের পাশাপাশি ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশও এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনাটি গুরুত্ব দিয়ে তদন্ত করছে। এছাড়া ঘটনাস্থল থেকে নিহতের মোবাইল ফোন উদ্ধার করে কললিস্ট যাচাই-বাছাই করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

পুলিশকে চিঠি
এদিকে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ঢাকা মহানগর পুলিশের ওয়ারি জোনের উপ কমিশনারকে নাজিম হত্যার ঘটনায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে অনুরোধ করে চিঠি দিয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর নূর মোহাম্মদের পাঠানো ওই চিঠিতে বলা হয়, শিক্ষার্থী নিহত হওয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে শিক্ষার্থীদের মধ্যে তীব্র ক্ষোভ বিরাজ করছে। হামলাকারী দুর্বৃত্তদের শনাক্ত করে দ্রুত আইনের আওতায় এনে বিচারের ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বিশেষভাবে অনুরোধ করছি।

প্রসঙ্গত, ২৭ বছর বয়সী নাজিমুদ্দিন সামাদ জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের সান্ধ্যকালীন বিভাগের ছাত্র ছিলেন। গত বুধবার রাত ৯টার দিকে বাসায় ফেরার সময় সূত্রাপুরের একরামপুরে এলোপাথাড়ি কুপিয়ে ও গুলি করে হত্যা করা হয়। নাজিম ধর্মান্ধতার বিরুদ্ধে অনলাইনে লেখালেখিতে সক্রিয় ছিলেন। ফেইসবুক পাতায় তিনি নিজেকে সিলেট জেলা বঙ্গবন্ধু জাতীয় যুব পরিষদের তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক হিসেবে উল্লেখ করেন।

Share This: