ঝিনাইদহে বন্দুকযুদ্ধে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র নিহত

bonduk-juddhoনিউজ ডেস্ক: ঝিনাইদহ সদর উপজেলায় পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ সাইফুল ইসলাম মামুন নামের এক যুবক নিহত হয়েছেন।সোমবার দিবাগত রাত সাড়ে ৩টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত মামুন ঝিনাইদহের শৈলকূপা উপজেলার মুচড়াপাড়া-পুটিমারী গ্রামের লুৎফর হোসেনের ছেলে। তিনি ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের আরবি বিভাগের মাস্টার্স শেষ বর্ষের ছাত্র। একই সঙ্গে তিনি ইসলামী ছাত্রশিবিরের স্থানীয় গুরুত্বপূর্ণ নেতা বলে জানা গেছে। তবে তাঁর দলীয় পদবি জানা যায়নি।

জানা যায়, গত ১ জুলাই সেবায়েত শ্যামানন্দ দাস বাবাজি নিহত হন। এ খুনের পরে ঝিনাইদহ জেলা শহরের পবহাটী গ্রামের টুলু মিয়ার বাড়ি থেকে সাদা পোশাকের লোকজন তুলে নিয়ে যায় মামুনকে।

পুলিশের ভাষ্য, বন্দুকযুদ্ধের পর ঘটনাস্থল থেকে একটি শাটারগান, দুটি গুলি, পাঁচটি বোমা ও তিনটি রামদা উদ্ধার করা হয়।

ঝিনাইদহের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আজবাহার আলী শেখ জানান, সোমবার দিবাগত রাতে পুলিশের একটি টহল দল ঝিনাইদহ-মাগুরা সড়ক দিয়ে হাটগোপালপুর পুলিশ ক্যাম্পের দিকে যাচ্ছিল। সদর উপজেলার পোড়াহাটি ইউনিয়নের আড়ুয়াকান্দি যাওয়ার পর পুলিশের টহল দলকে লক্ষ্য করে বোমা নিক্ষেপ করে সন্ত্রাসীরা। এতে ঝিনাইদহ থানার দুই কনস্টেবল আহত হন। ওই সময় পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। পরে ঘটনাস্থল থেকে এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করা হয় ।

আজবাহার আলী জানান, নিহত ব্যক্তির নাম-পরিচয় পাওয়া যায়নি। রাতেই লাশটি ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়।

Share This: