নড়াইলে আওয়ামী লীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা

নিউজ ডেস্ক: নড়াইলের ভদ্রবিলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি প্রভাষ রায় হানুকে (৫০) কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। বুধবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে তিনি মারা যান।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, প্রভাষ রায় হানু বুধবার রাত সাড়ে ৭টার দিকে মিরাপাড়া বাজারের একটি দোকান থেকে চা পান শেষে রাস্তার ওপর দাঁড়িয়ে একই গ্রামের কালু’র সঙ্গে কথা বলছিলেন। এসময় ভদ্রবিলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শহীদুর রহমান মিনার ছেলে আশিক মিনা (২২) অতর্কিতভাবে কাছে এসে পেটে ছুরি ঢুকিয়ে দেয়। ছুরি মোড়া দেয়ায় প্রভাষ রায় হানুর পেট থেকে নাড়ি-ভুঁড়ি বেরিয়ে পড়ে। এসময় তাকে দ্রুত উদ্ধার করে নড়াইল সদর হাসপাতালে নেয়া হয়।

নড়াইল সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক পথিক বিশ্বাস জানান, আহত হানুর পেটের আঘাত খুবই গুরুতর। পেটের নাড়ি কেটে যাওয়ায় এবং অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে যশোর মেডিকেল কলেজ হাপসাতালে স্থানান্তর করা হয়।

ভদ্রবিলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. খায়রুজ্জামান জানান, নড়াইল সদর হাসপাতাল থেকে যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পর চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। মৃতদেহ যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রয়েছে।

জানা গেছে, নিহত প্রভাষ রায় হানু ভদ্রবিলা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী আবিদুর রহমানের পক্ষে কাজ করেন। ওই নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী শহীদুর রহমান মিনা জয়লাভ করেন। এরপর থেকে হানুর ওপর নির্বাচিত চেয়ারম্যানের লোকজন ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন।

পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, প্রভাষ রায় হানু, ব্যবসায়ীক সুবিধার কারনে নড়াইল শহরে ভওয়াখালী এলাকায় বসবাস করেন। সরস্বতী
পূজা উপলক্ষে গ্রামের বাড়িতে গিয়েছিলেন।

নড়াইল সদর থানার ওসি দেলোয়ার হোসেন খান জানান, ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে ৫ জনকে আটক করা হয়েছে। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

Share This: