শিক্ষা ব্যবস্থায় ব্যাপক পরিবর্তন প্রয়োজন : খালেদা

নিউজ ডেস্ক: বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া বলেছেন, আমি শিক্ষাবিদ নই কিন্তু বিভিন্ন মেয়াদে রাষ্ট্র পরিচালনা করতে গিয়ে দেখেছি শিক্ষা ব্যবস্থায় ব্যাপক পরিবর্তন প্রয়োজন।

শনিবার বিকেলে ঢাকা লেডিস ক্লাবে ‘বাংলাদেশের বর্তমান শিক্ষা ব্যবস্থা ও আমাদের ভবিষ্যৎ’ শীর্ষক দিনব্যাপী সেমিনারের সমাপনী অধিবেশনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, শিক্ষা ব্যবস্থায় এমন পরিবর্তন প্রয়োজন যা দেশের মানুষের আশা-আকাঙ্ক্ষাকে প্রতিফলিত করবে, শিক্ষার সুফল সব মানুষের জীবনে পৌঁছাবে। শিক্ষা হবে আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে উন্নত জাতি হিসেবে আমাদের পরিচিতি ও মাধ্যম। শুধু সীমিত লোকের অর্থ ও বিত্ত দিয়ে আমরা এই পরিচিতি অর্জন করতে পারব না।

বিএনপি চেয়ারপারসন বলেন, শিক্ষা মানুষের গণতন্ত্রের প্রতি, ভিন্নমতের প্রতি, ভিন্নমত প্রকাশের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হতে শিক্ষা দেয়। কিন্তু বর্তমান ক্ষমতাসীন সরকার শিক্ষার এই মৌলিক লক্ষ্যকে পদদলিত করেছে।

তারা শিক্ষাক্ষেত্রে এগিয়ে যাওয়ার কথা দাবি করলেও দেশে গণতন্ত্রকে ধ্বংস করছে, ভিন্নমত প্রকাশের স্বাধীনতাকে খর্ব করছে।
তিনি বলেন, প্রতিহিংসার বশবর্তী হয়ে ক্ষমতাসীন সরকার সব বিরোধী মতকে নিশ্চিহ্ন করার চেষ্টা চালাচ্ছে।

খালেদা বলেন, জনগণের ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের মাধ্যমেই আমরা দেশে গণতন্ত্রকে ফিরিয়ে আনব, প্রতিষ্ঠা করব মানুষের অধিকার।

তিনি বলেন, মর্যাদাবিহীন মানুষ সমাজে সবসময় উপেক্ষিত থাকে। আমাদের সমাজে এই উপেক্ষার হার অনেক বেশি। এ কারণেই সবার কাছে গ্রহণযোগ্য জীবনভিত্তিক শিক্ষাব্যবস্থা প্রয়োজন, যা বাংলাদেশের মানুষকে আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে অন্যদের সঙ্গে প্রতিযোগীতায় সক্ষম করে তুলবে।

তিনি আরও বলেন, আমাদের মানবসম্পদ উন্নয়নের লক্ষ্যে জনগোষ্ঠীর চিন্তার জগতে পরিবর্তন আনতে হবে।

এর আগে দিনব্যাপী অনুষ্ঠিত ৪টি অধিবেশনে যারা প্রবন্ধ উপস্থাপন করেছেন তাদেরকে ক্রেস্ট প্রদান করেন বেগম খালেদা জিয়া। বিএনপির শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক অধ্যাপক ড. এ বি এম ওবায়দুল ইসলামের সঞ্চালনায় সমাপনী অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

এ সময় দলের কমিটির সদস্য, ভাইস চেয়ারম্যান, চেয়ারপারসনে উপদেষ্টা, ২০ দলীয় জোটের নেতা ও বিএনপির অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

Share This: