বিলুপ্তির পথে পার্বত্যাঞ্চলের বাঁশের তৈরি পাটি

লাইভ প্রেস২৪,দীঘিনালা: পার্বত্যাঞ্চলের পাহাড়িদের বাঁশের তৈরি পাটি ও ধান রাখার ঝুঁড়ি (পাহাড়িদের ভাষায় তলই ও ডোল) বাঁশের অভাবে বিলুপ্তির পথে। পাহাড়ের স্থানীয় চাহিদা পূরন এই পাটি দেশের বিভিন্ন স্থানে যেত এখন স্থানীয় চাহিদা পূরনে করতে হিমসিম খাচ্ছে। এই পাটিতে পাহাড়ের বসবাসরত জনগোষ্ঠীরা মাটিতে বিছিয়ে ঘুমাতো এবং ধান শুকানো কাজে ব্যবহার করত।

এখনও পার্বত্যাঞ্চলের দূর্গম এলকাতে এই পাটি দিয়ে ধান শুকানোর কাজে ব্যবহার হয়ে আসছে এবং যাদের খাট-পালং কিনার সমর্থ নাই তারা মাটির উপর বিছিয়ে ঘুমানোর কাজে ব্যবহার করে আসছে। আগে পাহাড়ে প্রাকৃতিক ভাবে প্রচুর বাঁশ উৎপাদন হত ঢুলু বাঁশ নামক বাঁশ দিয়ে এই পাটি তৈরি করত স্থানীয় পাহাড়ি সম্প্রদায়ের লোকেরা । অপরদিকে স্থানীয় ভাবে উৎপাদিত ধান বছর ব্যাপি সংরক্ষন করে রাখার জন্য ব্যবহার করা হয়ে থাকে।

দীঘিনালা উপজেলার বানছড়া এলাকা পাটি বিক্রি করতে এসে বিনয় চাকমা জানান, পাহাড়ে বাঁশ এখন কমে গেছে তাই জংগলে অনেক খোজাখুজি করে ঢুলু বাঁশ সংগ্রহ করে তিন/ চার দিনে তৈরি করে বাজারে বিক্রি করতে নিয়ে আসি প্রতিটি পাটি ৪৫০-৫০০ টাকা ধরে বিক্রয় করি। এই টাকা দিয়ে কোন মতে জীবন চলে তবে আগে বাঁশ বেশি ছিল বেশি করে পাটি তৈরি করতে পারতে পারতাম। সব বাঁশ দিয়ে পাটি ও ধান রাখার ঝুঁড়ি তৈরি করা যায় না শুধু মাত্র ডুলু বাঁশ দিয়েই এইসব জিনিস তৈরি করা যায়।

লাইভ প্রেস২৪/সোহেল রানা/বিএইচ

Share This: