ধামরাইয়ে ২টি ইটভাটাসহ ব্যাটারী কারখানাকে ১৫ লক্ষ ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমান আদালত

নিজস্ব প্রতিবেদক (ধামরাই): ঢাকার ধামরাইয়ে দুটি অবৈধ ইটভাটাসহ দুটি ব্যাটারি কারখানায় অভিযান পরিচালনা করে ১৫ লাখ ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। এ সময় ইটভাটাগুলোর অনেকাংশ ভেঙে গুড়িয়ে দেয়া হয়েছে যাতে করে তারা পরবর্তীতে কোন ইট উৎপাদন করতে না পারে এবং পরিবেশ দূষণ থেকে রক্ষা পায়।

বুধবার (১৯ ফেব্রুয়ারী) সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে ধামরাইয়ের ডাউটিয়া এলাকায় ২ টি ইট ভাটাকে ১২ লাখ টাকা ও ২ টি ব্যাটারি কারখানাকে ৩ লাখ ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেন পরিবেশ অধিদপ্তরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তানজিদ আহমেদ।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তামজিদ আহমেদ জানান, বাসা-বাড়ি, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও হাসপাতালের দেড় কিলোমিটারের মধ্যে কোন ইট ভাটা থাকবে না, ইটভাটা থাকা বেআইনি।কিন্তু ডাউটিয়া এলাকার ২টি ইটভাটার মালিক এ আইন অগ্রাহ্য করে দির্ঘদিন ধরে ব্যবসা পরিচালনা করে আসছে । এছাড়া ইটভাটাগুলো কৃষি জমির টপ সয়েল ব্যবহার করে ইট তৈরি করছে ও মারাত্বকভাবে পরিবেশ দূষণ করছে । এছাড়াও ধামরাইয়ের বেলিশ্বর ও ডাউটিয়া এলাকায় কাগজপত্র বিহীন

এসব অভিযোগের ভিত্তিতে সকাল থেকে শুরু হওয়া অভিযানে ২টি ইটভাটাকে ৬ লাখ টাকা করে মোট ১২লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এদের মধ্যে প্রিয়াংকা ও লাকী সেবেন ব্রিকসের মালিকরা জরিমানার ১২ লাখ টাকা পরিশোধ করেন। অপরদিকে ধামরাইয়ের ডাউটিয়া এলাকায় আরগাজ ব্যাটারি কারখানাকে ২ লাখ ও বেলিশ্বর এলাকায় একটি চায়না ব্যাটারি কারখানাকে ১ লাখ ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেন।

এ বিষয়ে ধামরাই থানার অফিসার ইনচার্জ দীপক চন্দ্র সাহা বলেন, ইট ভাটা ও ব্যাটারি কারখানার কারণে পরিবেশ দূষিত হচ্ছে। তাদের কোন বৈধ কাগজপত্র নাই। বিশেষ করে পরিবেশ অধিদপ্তরের কোন বৈধ কাগজপত্র নাই এবং ব্যাটারি কারখানার দূষিত বর্জে পানি ও পরিবেশে র মারাত্মক ক্ষতি হচ্ছে। তাই এ অভিযান এবং তা অভ্যাহত থাকবে।

ঢাকা জেলা পরিবেশ অধিদপ্তরের নির্বাহী হাকিম তামজিদ ইসলাম বলেন, ডাউটিয়ার ২টি ইটভাটা ৪০০ থেকে ৫০০ মিটারের মধ্যেই হাসপাতাল ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। যা ইটভাটা আইনের বহির্ভূত। তাই এসব ইটভাটাকে জরিমানার পাশাপাশি তাদের কার্যক্রম বন্ধ করার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। এছাড়া বাকী ২ টি ব্যাটারি কারখানার কারণে পানি দূষিত হচ্ছে এবং তাদের কোন বৈধ কাগজপত্র নাই।তাই তাদের জরিমানার আওতায় আনা হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, সম্প্রতি রাজধানী ঢাকার বায়ু দূষণের পরিমাণ অতিমাত্রায় বেড়ে যাওয়ায় আদালত উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। দূষণ রোধে হাইকোর্টের কঠোর নির্দেশনা রয়েছে। এরই অংশ হিসেবে ঢাকার আশপাশের অবৈধ ইটভাটা বন্ধে অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে। এ অভিযান অব্যাহত থাকবে।

লাইভ প্রেস২৪//এম আর

Share This: