বিলুপ্তির পথে লাঙ্গল এর ব্যবহার

লাইভ প্রেস২৪,সুন্দরগঞ্জ: বারো পনেরো বছর আগে হুট হুট হুট বায়ে বায়ে বায়ে ডানে ডানে ডানে যা যা যা হুস হুস এমন ভাবে দুটি গরুকে ইসারা করে। আর গরুর ঘারে রাখা বাঁশ সে বাশের সাথে রাখা লোহার শুযজ। যা গ্রাম্য ভাষায় নাংগোল বলা হয়। আর যখন নাংগোল টি মাটিতে রেখে গরুকে ইশারা করা হয়। শুযজ টি মাটির ভিতরে যেয়ে জমির মাটি ভেঙে যায়। যা এক পর্যায়ে কাদায় রুপান্তিত হয়। আর এই ভাবেই জমি তৈরি করে চাষের উপযোগী করে তলা হত গ্রাম বাংলার আবাদি জমি।

কিন্তু কালের পরিবর্তন প্রযুক্তির আবির্ভাবে এখন আর এ নাংগোল এর ব্যবহার নেই বললেই চলে। এখন জমি প্রস্তুত করতে ব্যবহার হয় টিলার মেশিন, ট্রাকটর সহ আরো আরো অন্য অন্য প্রযুক্তি সাম্প্রতিক গাইবান্ধা সুন্দরগঞ্জ উপজেলার দক্ষীন সমস কুটি পাড়া এলাকায় জমিতে নাংগোল দিয়ে জমি প্রস্তুত করতে দেখা গেছে।

নাংগোল চালক (কৃষক) আব্দুল করিম বলেন, আমি মালিবারি এলাকা থেকে এসেছি। আমি গরু দিয়ে জমি প্রস্তুতি করি। আর চাষ করে যে টাকা পায় সেটা দিয়ে পরিবার চালায়। কিন্তু বর্তমান টিলার আসায় আমাদের আর কেও ডাকে না।

জমির মালিক আজহার আলী বলেন, আমি টিলার দিয়ে জমি হাল চাষ করি। কিন্তু চার পাসে ধান চারা রোপন করায়। আমি নাংগোল দিয়ে চাষ করে নিচ্ছি।

লাইভ প্রেস২৪/আব্দুল হামিদ/বিএইচ

Share This: