কঠোর ব্যবস্থা এখনই শিথিল নয়: ডব্লিউএইচও

লাইভ প্রেস২৪,ডেস্ক: লকডাউন, কারফিউ ও জরুরি অবস্থা জারির মতো কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণের ফলে বিভিন্ন দেশে করোনাভাইরাসের প্রকোপ কমেছে। পরিস্থিতির সামান্য উন্নতি হওয়ায় কিছু দেশ এখন এসব কঠোর ব্যবস্থা শিথিল করার কথা ভাবছে। তবে এমন মনোভাবের বিরুদ্ধে হুঁশিয়ার করে দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

সোমবার সংস্থার মুখপাত্র ক্রিশ্চিয়ান লিন্ডমিয়ার এক ভার্চুয়াল ব্রিফিংয়ে বলেছেন, এখন গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে গৃহীত ব্যবস্থা তড়িঘড়ি তুলে নিয়ে আবার সাবেক অবস্থায় না ফেরা। তিনি বলেন, ‘আপনি যদি খুব তাড়াতাড়ি ঘুম থেকে জেগে দৌড়াতে শুরু করেন, তবে আবার অসুস্থ হয়ে পড়তে পারেন এবং জটিলতা তৈরি হতে পারে।’

হুর করোনাবিষয়ক প্রধান কর্মকর্তা মারিয়া ভান কারখোভ বলেছেন, কারও শরীরে কভিড-১৯ রোগের লক্ষণ দেখা দেওয়ার এক থেকে তিন দিন আগেই তিনি এ ভাইরাসটি ছড়িয়ে দিতে পারেন। তিনি বলেন, কারও মধ্যে উপসর্গ থাকুক অথবা তিনি উপসর্গ-পূর্ব অবস্থায় থাকুন না কেন, তার নাক ও মুখের ড্রপলেটের মাধ্যমে রোগটি ছড়াতে পারে। অর্থাৎ, অনেক অজানা লোকও হয়তো রোগটি ছড়াচ্ছে। হুর নির্বাহী পরিচালক ডা. মাইক রায়ানও বলেছেন, নিজের অজান্তেই অনেক লোক হয়তো সংক্রমিত হচ্ছেন।

এদিকে হু জানিয়েছে, বিশ্বে বর্তমানে ৫৯ লাখ নার্সের ঘাটতি রয়েছে। সারা বিশ্বে বর্তমানে এ পেশায় নিয়োজিত আছেন দুই কোটি ৮০ লাখ মানুষ। বিশ্বের অর্ধেক লোকের জন্য রয়েছে ৮০ ভাগ নার্স। আফ্রিকা, দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া, পূর্ব ভূমধ্যসাগরীয় এলাকা এবং লাতিন আমেরিকার কিছু দেশে নার্সের ঘাটতি প্রকট। বিশ্ব স্বাস্থ্য দিবসে সংস্থাটি এ তথ্য প্রকাশ করল। এ দিবসে এবারের প্রতিপাদ্য ছিল ‘নার্স ও ধাত্রীদের জন্য সহায়তা’।
লাইভ প্রেস২৪/এএম