করোনা চিকিৎসায় ৬৯ বেসরকারি হাসপাতাল প্রস্তুত

লাইভ প্রেস২৪,ঢাকা: বিশ্ব মহামারি করোনভাইরাসের প্রকোপ বাংলাদেশেও আশঙ্কাজনক রূপ নিচ্ছে। প্রতিদিন প্রায় দ্বিগুণ হারে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। এই অবস্থায় সরকারি হাসপাতালের পাশাপাশি দেশের বেসরকারি হাসপাতালগুলোতেও এই রোগের চিকিৎসা দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে। দেশের ৬৯টি বেসরকারি হাসপাতালের ২০ হাজার ডাক্তার ও নার্স এই চিকিৎসাসেবা দেবেন।

বৃহস্পতিবার করোনা নিয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অনলাইন ব্রিফিংয়ে জানানো হয় এই তথ্য। স্বাস্থ্যমন্ত্রী, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক, আইইডিসিআরের পরিচালকসহ সংশ্লিষ্টরা ব্রিফিংয়ে উপস্থিত ছিলেন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানায়, দেশের ৬৯টি বেসরকারি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ করোনাসহ যেকোনো রোগের চিকিৎসাসেবা নিশ্চিতের ঘোষণা দিয়েছে। এছাড়া বেসরকারি হাসপাতালের ২০ হাজার চিকিৎসক চিকিৎসা দিতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হয়েছেন।

ব্রিফিংয়ে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. এনামুর রহমান জানান, বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের (বিএমএ) অন্তর্ভুক্ত ৬৯টি বেসরকারি মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে ২৪ ঘণ্টা করোনাসহ সব রোগের চিকিৎসাসেবা দেওয়া হবে।

ব্রিফিংয়ে যোগ দিয়ে বাংলাদেশ প্রাইভেট মেডিকেল কলেজ অ্যাসোসিয়েশনের (বিপিএমসিএ) সভাপতি মবিন খান বলেন, ‘করোনার এই মহামারিতে আমরা দেশের মানুষের পাশে আছি। এই দুর্যোগে সময় আমরা কোনোভাবেই বসে থাকতে পারি না। আমাদের অ্যাসোসিয়েশনের ৬৯টি মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে দিন রাত ২৪ ঘণ্টা খোলা থাকবে।’

মবিন খান বলেন, ‘হাসপাতালগুলোতে করোনাসহ বিভিন্ন রোগের চিকিৎসা দেওয়া হবে। মেডিকেল কলেজ হাসপাতালগুলোতে প্রায় ২০ হাজার নার্স-চিকিৎসক রয়েছেন। তারা সব সময় প্রস্তুত রয়েছেন। এসব হাসপাতালের প্রতিটিতে ৫০০-৬০০ বেড প্রস্তুত থাকবে। করোনায় চিকিৎসা সেবা দিতে আমরা কিছু হাসপাতাল ডেডিকেটেড করে এসেছি। প্রয়োজনে আরও বাড়াব। আমাদের সব চিকিৎসক প্রস্তুত আছেন।’

ব্রিফিংয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে আরও ১১২ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এ নিয়ে ভাইরাসটিতে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ৩৩০ জনে। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনা সংক্রমণে অক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন আরও একজন। এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ২১ জনে।

লাইভ প্রেস২৪/এমআর