ধামরাই পৌরবাসীকে ঘরে থাকার জন্য মেয়র গোলাম কবীর এর শুভেচ্ছা উপহার

 

ধামরাই:করোনা ভাইরাস ( কোভিড-১৯) কি ও এর সংক্রমণ থেকে কিভাবে ঠেকানো যায় এর সার্বিক দিক উল্লেখ করে জনসচেতনতামূলক হ্যান্ডবিল (প্রচারপত্র) ধামরাই পৌরসভার মেয়র আলহাজ্ব গোলাম কবীর মোল্লা প্রতিটি ওয়ার্ডে ব্যাপক ভাবে প্রচার করে জনসচেতনতা সৃষ্টি করেছেন শুধু প্রচারপত্র বা হ্যান্ডবিল বিতরণ করে বসে থাকেননি ডিজিটাল ব্যানার করে ধামরাই পৌরসভার বিভিন্ন এলাকায় ঝুলিয়ে নিয়ে সচেতনতামূলক কার্যক্রম পরিচালনা করেছেন বিভিন্ন ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান মসজিদ, মন্দির সহ উপসনালয়গুলো, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ব্যানার ফেস্টুন টানিয়ে দিয়ে সরজমিনে নিজে থেকে সমাজের বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ নিয়ে মতবিনিময় করে নিরন্তর প্রচারনা চালিয়ে যাচ্ছেন। সাবান দিয়ে নিয়মিত হাত ধোঁয়ার পৌরসভার প্রবেশমুখে বেসিন সহ সাবান দিয়ে হাত ধোঁয়ার নির্ধারিত স্হান নির্ধারণ করে পৌরবাসীদের সচেতন করছেন যার কারণে প্রতিটি পাড়ায় জনপ্রতিনিধি, বিভিন্ন সামাজিক রাজনৈতিক সংগঠন এর নেতৃবৃন্দ খুব অল্প সময়ের মধ্যেই নিয়মিত সাবান দিয়ে হাত ধোঁয়ার অভ্যাস পৌরবাসীদের মধ্যে গড়ে উঠেছে। সেই সাথে চিকিৎসা সেবা’র জন্য উপজেলা স্বাস্হ্য সেবা প্রয়োজনীয় ব্যবস্হা গ্রহণ করার জন্য মানণীয় এমপি মহোদয় সহ উপজেলা স্বাস্থ্য ওপরিবার পরিকল্পনা অফিসার ও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সাথে নিয়মিত সভা ও বিভিন্ন কার্যক্রমে সব সময় যুক্ত থেকেছেন।
সারাবিশ্বে করোনা প্রাদুর্ভাব বেড়ে চলেছে দিনে দিনে মৃত্যুর মিছিল বাড়তে চললো, এ’ভাইরাসে সংক্রমণে সারা বিশ্বে লাখ লাখ লোক আক্রান্ত হলো তখন বাংলাদেশ সরকার ঘোষণা করলো সরকারি-বেসরকারি সকল প্রতিষ্ঠান, সকল যানবাহন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, ব্যবসা বানিজ্য ধর্মীয় উৎসব বন্ধ ঘোষণা করলো এবং সবাইকে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে ঘরে থাকার নির্দেশ দেওয়া হলো তখন মেয়র আলহাজ্ব গোলাম কবীর মোল্লা সরকারি নির্দেশ পৌরসভার সকল নাগরিকদের সরকারি নির্দেশ বাস্তবায়নে জন্য তার ঢাকার বাসায় যাওয়া স্হগিত করে পৌরসভাস্থ হুজুরীটোলা নিজ বাড়িতে রাত্রিযাপন শুরু করেন সেই সাথে দিন রাত সবাইকে নিজ নিজ বাড়িতে অবস্হান করার জন্য নিজে হ্যান্ড মাইকে সচেতন করেছেন। যা সর্বমহলে প্রসংশিত ও দৃশ্যমান হয়েছে।
ধামরাই পৌরবাসী প্রধানমন্ত্রী ও সরকারি নির্দেশ মেনে চলার জন্য সর্বসাধারণের মাঝে সচেতনতা ফিরে আসায় ধামরাই পৌরসভার জনগনকে ধন্যবাদ বার্তা সহ খাদ্য সামগ্রী প্রতিটি বাড়িতে প্রেরণ করা হচ্ছে। খাদ্য সামগ্রীর মধ্যে মুড়ি, ছোট এক প্যাকেট উন্নত মানের বিস্কুট ও এক প্যাকেট চা পাতা।
এ’উপহার পেয়ে অনেক উচ্ছসিত ও আনন্দিত হয়েছে এ’ কারনে খাদ্য সামগ্রী উপহার দেওয়া রেওয়াজ নেই কিন্ত মেয়র মহোদয় উপলব্ধি করেছেন ধামরাইয়ের সকল দোকান বন্ধ বিশেষ করে চা এর দোকান। তাই মেয়রের উপহার সানন্দে গ্রহণ করিলাম আমরাও সর্বতোভাবে সরকারি নির্দেশ ও মেয়রের আহবানে সাড়া দিয়ে সহযোগিতা করব।