ভয়াবহ বন্যার পানিতে সাভার প্লাবিত, জনদূর্ভোগ চরমে | Live Press24

ভয়াবহ বন্যার পানিতে সাভার প্লাবিত, জনদূর্ভোগ চরমে

Published on: 9:03 pmAugust 8, 2020

বিডিপ্রেস এজেন্সি, সাভার :  সাভার, আশুলিয়া ও ঢাকার ধামরাইয়ে ভয়াবহ বন্যার পানিতে শতাধিক গ্রাম প্লাবিত হয়েছে, তলিয়ে গেছে আঞ্চলিক সড়কসহ বিভিন্ন স্থাপনা। এতে চরম দুর্ভোগে পড়েছে গার্মেন্টস শ্রমিকসহ কয়েক লাখ বানভাসি মানুষ। বাড়িঘর বন্যার পানির নিচে তলিয়ে যাওয়ায় অনেক পরিবার খোলা আকাশের নিচে অবস্থান করছে।

বন্যার পানিতে বাড়িঘর তলিয়ে যাওয়ায় অনেক কষ্টে আছেন তারা। কিন্তু এত কঠিন দুর্ভোগের মধ্যেও স্থানীয় জনপ্রতিনিধি বা সরকারের পক্ষ থেকে কোনো ত্রাণ বা সাহায্য পৌঁছায়নি তাদের কাছে। যার ফলে মানবেতর জীবনযাপন করছেন বানভাসি মানুষরা

সাভার-আশুলিয়া-ধামরাইয়ের (ঢাকা বিভাগ-২) পানি উন্নয়ন বোর্ডের দায়িত্বরত উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী রাহাত রশিদ সংবাদ সংস্থা লাইভ প্রেস২৪কে  বলেন, কয়েক দিন ধরেই তুরাগ নদী, ধলেশ্বরী নদী ও বংশী নদীর পানি বাড়ছে। তুরাগ নদীর পানি বিপৎসীমার ৪৯ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। অন্যদিকে বংশী নদীর পানি বিপৎসীমার ১৬ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

এছাড়া খাল-বিল ও নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় সাভারে প্রতিদিনই নতুন নতুন এলাকা প্লাবিত হচ্ছে। গুরুত্বপূর্ণ সড়ক, রাস্তা-ঘাট, বসতবাড়ি, বাজার, সেবামূলক প্রতিষ্ঠান, ফসলি জমি, মাছের ঘের ও পুকুরসহ বিভিন্ন স্থাপনা তলিয়ে যাচ্ছে বলেও জানান তিনি।

সাভার পৌরসভার ও সাভার উপজেলার ১২টি ইউনিয়নের গ্রাম ঘুরে বন্যায় পানিবন্দীদের দুর্ভোগ পোহাতে দেখা গেছে। বন্যা কবলিত এলাকাগুলোতে বিশুদ্ধ পানি ও খাবার সঙ্কট প্রকট আকার ধারণ করেছে। পানিতে যাদের বাড়িঘর তলিয়ে গেছে, তারা কোনোমতে জীবনযাপন করছেন।

এছাড়া শিল্পাঞ্চলের বেশ কিছু এলাকায় বিভিন্ন বাসা-বাড়ি ও শ্রমিক কলোনিসহ রাস্তাঘাটে কলকারখানার বর্জ্য মিশ্রিত বিষাক্ত পানিতে চলাচল করতে গিয়ে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে জনজীবন। ।

সাভার পোড়াবাড়ি এলাকার বাসিন্দা আনোয়ারা বেগম সংবাদ সংস্থা লাইভ প্রেস২৪কে  বলেন, বলেন, ২২ বছর পর এবার বন্যার পানি দেখা দিয়েছে। কিন্তু এলাকার কেউ এক কেজি চাল দিলো না। আমার নাক ফুল বিক্রি করে চাল কিনে এনেছি।

সাভার পৌরসভার আওয়ামী লীগ নেতা রমজান আহম্মেদ সংবাদ সংস্থা লাইভ প্রেস২৪কে  বলেন, ‘বন্যার পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় ঘরের ভেতরে হাঁটু পানি। ছোট বাচ্চাকে বাড়িতে রেখে কারখানায় যেতে হয়। পানি আরেকটু বৃদ্ধি পেলে পড়তে হবে মহাবিপদে। তখন বাচ্চাকেই দেখবে কে? আর থাকবোই বা কোথায়।’

লাইভ প্রেস২৪/টিআইএস

আরও পড়ুন

দেশে করোনায় মারা গেলেন আরও ২৮ জন, শনাক্ত ১৫৪০ জন
‘জনগণের দৃষ্টি ভিন্ন দিকে ফেরাতে করোনার জিগির তোলা হচ্ছে’
দেশ পরিচালনায় সকল ক্ষেত্রে ব্যর্থ সরকার : ফখরুল
সরকার নিজেই দুর্নীতিগ্রস্ত, তাই নিজেদের ভুল দেখতে পারছে না: ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী
১ অক্টোবর থেকে সৌদিগামী বাতিল হওয়া সব রুটের ফ্লাইট চালু
সারাদেশে ঝড়বৃষ্টির সম্ভবনা
অবশেষে প্রাথমিক স্কুল খোলার প্রস্তুতি, নির্দেশ ও পরিপত্র জারি
নতুন কারা মহাপরিদর্শক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোমিনুর
উপ-নির্বাচনে আর রাতে ভোটের সুযোগ নেই : সিইসি
‘পরিকল্পনা ছাড়া কোনো আন্দোলনেই বিজয়ী হওয়া যায় না’