জুন ১৫, ২০২৪

নিউজ ডেস্ক: ২০১৩ সালে যুক্তরাষ্ট্রের রাজধানী ওয়াশিংটন, ডি.সি.-তে নতুন দূতাবাস ভবন কেনার সময় শ্রীলঙ্কা সরকারের কাছ থেকে ৩,৩২,০২৭ ডলার (প্রায় ২ কোটি ৮৭ লাখ টাকা) অর্থ পাচার এবং আত্মসাৎ করার চেষ্টা করার জন্য অভিযুক্ত শ্রীলঙ্কার এক প্রাক্তন রাষ্ট্রদূত আজ (শনিবার) নিজের দোষ স্বীকার করেছেন। যুক্তরাষ্ট্রের জাস্টিস ডিপার্টমেন্ট এর ওয়েবসাইটে বিষয়টি নিশ্চিত করে বলা হয়ঃ

আর্লিংটন, ভার্জিনিয়ার জালিয়া চিত্রান বিক্রমাসুরিয়া (৬১) যুক্তরাষ্ট্রে এবং মেক্সিকোতে শ্রীলঙ্কার রাষ্ট্রদূত হিসেবে ২০০৮ সাল থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেছিলেন। তিনি ‘ওয়্যার ফ্রড’ এর ষড়যন্ত্রে অংশ নেয়ায় কলম্বিয়ার জেলা আদালতে নিজের দোষ স্বীকার করেছেন। এই অভিযোগে দোষী প্রমাণিত হলে সর্বোচ্চ পাঁচ বছরের জেল এবং সম্ভাব্য আর্থিক জরিমানার বিধান রয়েছে। বিচারক তানিয়া এস চুটকান আগামী ২০শে জুলাই তার শাস্তির জন্য সময় নির্ধারণ করেছেন।

উল্লেখ্য, ২০১৬ সালে উইওন নিউজের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছিল- পূর্ববর্তী শাসনামলে রাষ্ট্রীয় তহবিল অপব্যবহারের অভিযোগে শ্রীলঙ্কার প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট (বর্তমান প্রধানমন্ত্রী) মাহিন্দা রাজাপাকসের এক ঘনিষ্ঠ আত্মীয়কে গ্রেপ্তার করে পুলিশ হেফাজতে পাঠানো হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়- রাজাপাকসের উত্তরসূরি প্রেসিডেন্ট মাইথ্রিপালা সিরিসেনা দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়াই করার প্রতিশ্রুতি দিয়ে ক্ষমতায় আসেন। গত বছরের (২০১৫) জানুয়ারিতে দায়িত্ব নেয়ার পরপরই সিরিসেনা রাজাপাকসের শাসনামলে সংগঠিত দুর্নীতির অপরাধ তদন্তের নির্দেশ দেন।

রাজাপাকসের নিকটতম পরিবারের সদস্যদের বিরুদ্ধে ঘুষ, চাঁদাবাজি এমনকি হত্যার অভিযোগ রয়েছে। শ্রীলঙ্কা সরকার মার্কিন ফেডারেল ব্যুরো অফ ইনভেস্টিগেশন (এফবিআই) এবং অন্যান্য আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলোর কাছে রাজাপাকসের আমলে দেশ থেকে পাচার হওয়া কোটি কোটি ডলার দেশে ফিরিয়ে আনতে সাহায্য চেয়েছে।